গাইবান্ধায় আগাম শীতকালীন সবজি চাষে ব্যস্ত কৃষক


 মোঃ রোমান আকন্দ,স্টাফ রিপোর্টার, গাইবান্ধা থেকে:

 ভালো দাম পাওয়ার আশায় আগাম শীতকালীন সবজি চাষে আগ্রহী গাইবান্ধার বিভিন্ন উপজেলার কৃষকরা। এখন তারা আগাম শীতকালীন সবজি চাষে মাঠে ব্যস্ত সময় পার করছেন।তারা ভোর থেকে বিকেল পর্যন্ত পরিশ্রম করে যাচ্ছেন সবজি ক্ষেতে। বীজ বপন থেকে শুরু করে চারা গাছ লাগানো, সার-কীটনাশক প্রয়োগে ব্যস্ত স্বপরিবারে। গাইবান্ধা সদর উপজেলার, দারিশাপুর,ঘাগোয়া গিদারী কামারজানি সহ আারও বিভিন্ন ইউনিয়নের কৃষকরা বিভিন্ন প্রজাতির শীতকালীন সবজি চাষ করেছেন।

 এরমধ্যে রয়েছে- মুলা, বেগুন, ফুলকপি, বাঁধাকপি, টমেটো, শিম, লালশাক, ঢেঁড়শ, ধুন্দুল, করলা, পালংশাক, পুঁইশাক, বরবটি, লাউ, কুমড়া। সরজমিনে ইউনিয়নের বিভিন্ন স্থানে উপস্থিত হলে কৃষকরা জানান শীত আসার আগেই এসব সবজি বাজারে নিয়ে আসতে চান। এছাড়াও চার থেকে ছয় সপ্তাহ পর এসব সবজি বাজারজাত করতে পারবেন বলে আশা করছেন তারা। গাইবান্ধা সদর উপজেলা ঘাগোয়া ইউনিয়নের তালতলা খেয়া ঘাট সংলগ্ন ও আশেপাশের বেশ কিছু এলাকায় দেখা যায়, মাঠে কাজ করছেন কৃষকরা। কেউ সার ছিটচ্ছেন, কেউ মাটি দিচ্ছেন, কেউবা সবজি ক্ষেত পরিচর্যা করছেন কেউবা সবজির চারা গাছ রোপন করছেন।এর পাশাপাশি আবহাওয়া অনুকূলে থাকলে ভালো লাভ পাবেন বলে আশাবাদী চাষিরা। এদিকে বিভিন্ন স্থানে চিচিঙ্গা, লাউ, শষা ও মিষ্টি কুমড়ার ভালো ফলন হয়েছে।

 


 আগাম শীতকালীন সবজি হিসেবে এসব সবজি বাজারে ওঠা শুরু করেছে। বিক্রিও হচ্ছে বেশ ভালো দামে।গাইবান্ধা সদর উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় সারাবছর ধরে শাক-সবজির চাষ হয়। তবে শীত মৌসুমকে কেন্দ্র করে আগাম শীতের সবজি আবাদ হয় ব্যাপক হারে। জেলার কয়েকটি বড় সবজির হাটও রয়েছে এবং বিভিন্ন সবজিও ওঠে ঐ বাজারে। স্থানীয় কৃষকরা এছাড়াও সরাসরি স্থানীয় হাটে তোলেন কৃষিপণ্য। এসব পণ্য এখানে পাইকারি ও খুচরা দরে বিক্রি করেন তারা। স্থানীয় সুএে সবজি চাষীরা জানান, গত বছরের তুলনায় এবছর আমরা একটু ভোগান্তিতে আছি। এবছরের পাওয়া যাচ্ছে না পর্যাপ্ত পরিমাণে সার ও কীটনাশক ঔষধ। তাই সরকারের কাছে আমাদের আকুল আবেদন পর্যাপ্ত পরিমান সার পেলে সবজি ক্ষেত্রে উন্নতি করতে পারব নয়তোবা সার সংকটে আমাদের উৎপাদন ব্যাহত হবে।

Post a Comment

নবীনতর পূর্বতন